আজ ৯ই আষাঢ়, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২৩শে জুন, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বিকেএমইএ

ডলার সংকট মোকাবেলায় অভ্যন্তরীণ এলসি টাকায় খুলতে চান ব্যবসায়ীরা


ডলার সংকট মোকাবেলায় অভ্যন্তরীণ এলসি টাকায় খুলতে চান ব্যবসায়ীরা। আমদানি-রফতানি বাণিজ্য যাতে ব্যহত না হয় সে কারণে এ কৌশল নেয়ার পরামর্শ দিচ্ছেন সংশ্লিষ্টরা। ঋণপত্রের (এলসি) দায় মেটাতে পারছে না অনেক ব্যাংক। সংকটের কারণে অস্থিরতা তৈরি হয়েছে আন্তঃব্যাংক বৈদেশিক মুদ্রাবাজারে। এমন পরিস্থিতিতে স্থানীয় পর্যায়ে এলসি খোলা এবং এর মূল্য পরিশোধের ক্ষেত্রে ডলারের পরিবর্তে টাকা ব্যবহারের দাবি জানিয়েছে নিট পোশাক প্রস্তুত ও রফতানিকারকদের সংগঠন বিকেএমইএ। এর ফলে ডলার সংকট কিছুটা শিথিল হবে বলে মনে করছে সংগঠনটি।

সম্প্রতি বিকেএমইএ নির্বাহী সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম স্বাক্ষরিত এ-সংক্রান্ত একটি চিঠি বাংলাদেশ ব্যাংক গভর্নর আব্দুর রউফ তালুকদার বরাবর পাঠানো হয়েছে। চিঠিতে বলা হয়, বিশ্ব মন্দার প্রেক্ষাপটে সারা বিশ্বেই চলছে ডলার সংকট। বাংলাদেশও এর বাইরে নয়। ঋণপত্র খোলা এবং এর মূল্য পরিশোধে ডলারের চাহিদা মেটাতে রীতিমতো হিমশিম খাচ্ছে বাণিজ্যিক ব্যাংকগুলো। ফলে ক্ষতিগ্রস্ত হচ্ছে আমাদের রফতানি খাত।

চিঠিতে আরো বলা হয়, নিট সেক্টরের ৮০ শতাংশ কাঁচামাল দেশীয় পর্যায়ে সংগ্রহ করা হয়। সুতরাং বর্তমান ডলার সংকট মোকাবেলায় স্থানীয় পর্যায়ে ঋণপত্র খোলা এবং এর মূল্য পরিশোধের ক্ষেত্রে ডলারের পরিবর্তে টাকায় ঋণপত্র খোলা হলে এ সংকট মোকাবেলা কিছুটা হলেও সহজতর হবে। এছাড়া ডলার কনভারশনের নীতিগত প্রক্রিয়ার কারণে আমরা ডলারপ্রতি ৭-৮ টাকার পার্থক্যের ফলে বিশাল অংকের ক্ষতির সম্মুখীন হচ্ছি। ঋণপত্র ক্রয় এবং মূল্য পরিশোধের ক্ষেত্রে ডলারের পরিবর্তে টাকায় পরিশোধ করার ব্যবস্থা গ্রহণ করা হলে, তা থেকেও পরিত্রাণ পাব বলে আশা করছি।

জানতে চাইলে বিকেএমইএ নির্বাহী সভাপতি মোহাম্মদ হাতেম বণিক বার্তাকে বলেন, পোশাক রফতানিকারকরা দেশের অভ্যন্তরে স্পিনিং মিল থেকে সুতা কিনতে ব্যাক টু ব্যাক এলসি দেয়। একইভাবে অ্যাকসেসরিজের জন্য ব্যাক টু ব্যাক এলসি দেয়া হয়। এগুলো ডলারে খোলা হচ্ছে, অর্থ পরিশোধ হচ্ছে ডলারে। মূল রফতানি ঋণপত্রের বিপরীতে অভ্যন্তরীণ ব্যাক টু ব্যাক ঋণপত্র ডলারে না করে টাকায় করলে সমস্যা হওয়ার কথা না। বাংলাদেশী মুদ্রায় ঋণপত্র খোলা ও অর্থ পরিশোধের সুযোগ থাকলে ডলার কেনাবেচার ঝামেলা থাকে না। ডলার সংকটের মুখোমুখি হতে হয় না।

তথ্যসূত্র: বণিক বার্তা


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর