আজ ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সংগৃহীত ছবি

প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় সমাবর্তন


প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়ের তৃতীয় সমাবর্তনে ১ হাজার ১০৯ জন গ্র্যাজুয়েটকে সম্মাননা প্রদান করা হয়েছে। আজ রবিবার (৩০ অক্টোবর) সকাল ১০টায় নগরীর টাইগারপাসে একটি অভিজাত কনভেনশন সেন্টারে আয়োজিত এই সমাবর্তনে সভাপতিত্ব করেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। এবারের সমাবর্তনে কৃতিত্বপূর্ণ ফলাফল অর্জন করায় তিনজন আন্ডারগ্র্যাজুয়েট ও তিনজন পোস্ট গ্র্যাজুয়েটকে চ্যান্সেলর গোল্ড মেডেল, তিনজন আন্ডার গ্র্যাজুয়েট ও তিনজন পোস্ট গ্র্যাজুয়েটকে এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী গোল্ড মেডেল প্রদান করা হয়। এছাড়া ১৮ জন আন্ডার গ্র্যাজুয়েট ও ১৩ জন পোস্ট গ্র্যাজুয়েটকে ডিন অ্যাওয়ার্ড দেওয়া হয়।

উপাচার্য প্রফেসর ড. অনুপম সেন কৃতি শিক্ষার্থীদের সম্মাননা প্রদান করেন। এসময় তিনি বলেন, মানসম্মত শিক্ষাকার্যক্রম ও বহুমুখী সহশিক্ষা কার্যক্রম পরিচালনার মাধ্যমে এই বিশ্ববিদ্যালয় দেশ-বিদেশে বিশেষ খ্যাতি অর্জন করেছে। শিক্ষার্থীদের একাডেমিক দক্ষতা বৃদ্ধির পাশাপাশি সৃজনশীলতা সৃষ্টির জন্য নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে প্রিমিয়ার বিশ্ববিদ্যালয়।

তিনি আরও বলেন, প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি থেকে পাস করে বেরিয়ে যাওয়া শিক্ষার্থীরা দেশ-বিদেশের নানা ক্ষেত্রে সাফল্যের সঙ্গে কাজ করছে। আমি বিশ্বাস করি, এই ইউনিভার্সিটির তৃতীয় সমাবর্তনে যারা ডিগ্রি গ্রহণ করছে, তাদের উত্তর-জীবনও সাফল্যে পরিপূর্ণতা লাভ করবে।

ড. অনুপম সেন বলেন, বাংলাদেশকে জ্ঞান-সমৃদ্ধ করে এগিয়ে নেওয়ার লক্ষ্য নিয়ে প্রাক্তন মেয়র ও মানবতাবাদী রাজনৈতিক নেতা এবিএম মহিউদ্দিন চৌধুরী প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি প্রতিষ্ঠা করেন। তাই প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির লক্ষ্য কেবল জ্ঞান অর্জন নয়, জ্ঞান সৃষ্টি করা, এই লক্ষ্যে ও আদর্শে শিক্ষার্থীদের উদ্বুদ্ধ করা। প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটি ডিগ্রিকে মূল্য দিলেও আরো বেশি মূল্য দেয় তার শিক্ষার্থীরা যেন জীবনের ক্ষেত্রে এই ইউনিভার্সিটি থেকে তাদের অর্জিত জ্ঞানকে ব্যবহার করতে পারে।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন রবীন্দ্র ভারতীয় বিশ্ববিদ্যালয়ের সাবেক উপাচার্য প্রফেসর ড. পবিত্র সরকার, বাংলাদেশ অ্যাক্রেডিটেশন কাউন্সিলের চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. মেসবাহউদ্দিন আহমেদ, বাংলাদেশ বিশ্ববিদ্যালয় মঞ্জুরি কমিশনের সদস্য প্রফেসর ড. মো. আবু তাহের, প্রফেসর ড. বিশ্বজিৎ চন্দ, প্রফেসর ড. সাজ্জাদ হোসেন প্রমুখ।

তথ্যসূত্র ও আলোকচিত্র: পূর্বকোণ


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর