আজ ২৪শে অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৯ই ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

জিইসি কনভেনশন সেন্টারে চট্টগ্রাম মোটর ফেস্ট ২০২২

দেশে রাস্তার চেয়ে গাড়ির সংখ্যা বেড়ে গেছে: উপমন্ত্রী


দেশে রাস্তার চেয়ে গাড়ির সংখ্যা বেড়ে গেছে বলে মন্তব্য করেছেন শিক্ষা উপমন্ত্রী ব্যারিস্টার মহিবুল হাসান চৌধুরী নওফেল। আজ বৃহস্পতিবার (২০ অক্টোবর) বিকেলে জিইসি কনভেনশন সেন্টারে ‘চট্টগ্রাম মোটর ফেস্ট ২০২২’ উদ্বোধন অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথির বক্তব্যে তিনি এ কথা বলেন। তিন দিনব্যাপী মোটর ফেস্টে বিভিন্ন ব্রান্ডের প্রাইভেট কার, জিপ, মোটরসাইকেল, গাড়ির যন্ত্রাংশ, মোবিল ইত্যাদি প্রদর্শিত হচ্ছে।

অনুষ্ঠানে উপমন্ত্রী বলেন, আমাদের দেশে রাস্তার চেয়ে গাড়ির সংখ্যা বেড়ে গেছে। আমাদের মাটি আছে, মানুষ আছে। আমাদের মেধাবী পরিশ্রমী মানুষ দিয়ে আমাদের উর্বর মাটি দিয়ে সোনার বাংলা তৈরি করবো। আমরা কারও অধীনে থাকব না। আমাদের কাউকে শোষণ করতে দেব না। জাতির পিতা স্বপ্ন দেখিয়েছেন। তাঁর নেতৃত্বে আমরা বাংলাদেশ পেয়েছি। বিশাল গাড়ি শিল্প হবে স্বপ্নও দেখিনি। কিন্তু বঙ্গবন্ধু দেখেছিলেন বাংলাদেশের সক্ষমতা। আমি তাঁকে বিশেষভাবে স্মরণ করছি। বঙ্গবন্ধু পরিবার ও শহীদদের আত্মত্যাগ ও রক্তের বিনিময়ে আমরা বাংলাদেশ পেয়েছি। এ বাংলাদেশে আমাদের ধনসম্পদ হচ্ছে। সাধারণ মানুষের ভাগ্যের উন্নয়ন হচ্ছে।

এসময় প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার একটি স্বপ্নের কথা স্মরণ করিয়ে দিয়ে তিনি বলেন, আমরা বিদেশ থেকে গাড়ি আনবো না, রপ্তানি করবো। প্রধানমন্ত্রী বঙ্গবন্ধুকন্যা জননেত্রী শেখ হাসিনা আহ্বান জানিয়েছেন, গাড়ি আমরা বিদেশ থেকে আনবো না গাড়ি দেশেই তৈরি করবো। প্রধানমন্ত্রীর আহ্বানে পিএইচপি পরিবার এগিয়ে এসেছে। তাঁদের বিশেষভাবে ধন্যবাদ জানাই। গাড়ি প্রস্তুত ও বিশ্বখ্যাত ব্রান্ডের সঙ্গে প্রতিযোগিতা করবেন। এ দূরদর্শিতা আপনাদের মধ্যে আছে। সবাইকে আহ্বান জানাব, দেশে ম্যানুফেকচারিং ইকো সিস্টেম আপনারা করবেন। আমাদের সন্তানরা সেখানে টেকনিশিয়ান হবে সেলস পারসন হবে। ভারতে আছে, পাকিস্তানেও হয়ে গেছে। আমরা দেখেছি কিছু দিন আগে টয়োটা মিয়ানমারে প্ল্যান্ট দিচ্ছে। আমাদের দেশে একমাত্র প্ল্যান্ট ছিল প্রগতির। পিএইচপি করেছে।

মাননীয় প্রধানমন্ত্রী গাড়ির ম্যানুফেকচারিং বান্ধব পলিসি তৈরি করেছেন উল্লেখ করে উপমন্ত্রী আরো বলেন, আমরা আশা করছি, এ পলিসির সুফল আমরা পাবো। ব্যবসায়ীরা শুধু ট্রেডিং করলে হবে না। ট্রেডিংয়ের বাইরে ম্যানুফ্যাকচারিং করতে হবে। ইয়ামাহা, সুজুকিসহ যারা এসেছেন তাদের আহ্বান জানাব শুধু ভারত, জাপান, আমেরিকা, চীন থেকে গাড়ি আনলে হবে না। এ দেশে প্ল্যান্ট স্থাপন করে মোটরসাইকেল, গাড়ি উৎপাদন করতে পারেন। আপনার কারখানায় আমার ছেলে মেয়ের চাকরি চাই। তখনই হবে সত্যিকার অর্থে দেশপ্রেমিক ব্যবসায়ী। ব্যবসা অবশ্যই হালাল, দেশের জন্য গুরুত্বপূর্ণ। কিন্তু সেখানে দেশপ্রেম থাকলে কর্মসংস্থান অনেক বাড়বে। আপনারা শুধু ট্রেডিং না করে প্ল্যান্ট স্থাপন করুন। শিল্পবান্ধব ফ্রেমওয়ার্ক বঙ্গবন্ধু কন্যা করে দিয়েছেন। ফিন্যান্সিং দেশ-বিদেশ থেকে পাবেন। আমরা এখন আরএমজি, টেক্সটাইল রফতানি করছি। একসময় আমরা গাড়িও রফতানি করবো।

অনুষ্ঠানে অন্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ডের পরিচালক মনজুর আলম, পিএইচপি অটোমোবাইলস লিমিটেডের ব্যবস্থাপনা পরিচালক মোহাম্মদ আকতার পারভেজ প্রমুখ।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর