আজ ১১ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৬শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

প্রতিমন্ত্রীর বাসায় শিক্ষা কর্মকর্তা, বিভাগীয় মামলার সিদ্ধান্ত


ঊর্ধ্বতন কর্মকর্তার অনুমতি ছাড়া প্রতিমন্ত্রীর বাসায় সাক্ষাৎ করতে যাওয়া সাভার উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা করার সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়েছে। তাবশিরা ইসলাম লিজা নামে ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে অফিসে অনুপস্থিতি ও সময়মতো উপস্থিত না হওয়ার অভিযোগও আনা হয়েছে।

আজ শুক্রবার প্রাথমিক ও গণশিক্ষা তদন্ত ও শৃঙ্খলা বিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব মো. ফজলুর রহমান স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তি থেকে এ তথ্য নিশ্চিত হওয়া গেছে। এর আগে লিজার বিরুদ্ধে বিভাগীয় মামলা রুজুর জন্য গত ৪ সেপ্টেম্বর প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের তদন্ত ও শৃঙ্খলা শাখা থেকে খসড়া অভিযোগনামা ও অভিযোগ বিবরণী পাঠাতে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়কে নির্দেশনা দেওয়া হয়।

অভিযোগনামা অনুযায়ী, সাভার উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা তাবশিরা ইসলাম লিজা অফিস চলাকালীন ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমোদন না নিয়েই প্রতিমন্ত্রীর বাসায় সাক্ষাতের জন্য গেছেন, যা অপেশাদারসুলভ আচরণ। তিনি সরকারি কর্মচারী হয়ে অফিসে অভ্যাসগত দেরিতে উপস্থিত হয়েছেন। এ ছাড়া অফিস সময়ে একজন সরকারি কর্মকর্তা তাঁর ঊর্ধ্বতন কর্তৃপক্ষের অনুমোদন ছাড়া কর্মস্থলে অনুপস্থিত থাকা শৃঙ্খলার পরিপন্থী এবং সরকারি কর্মচারী (শৃঙ্খলা ও আপিল) বিধিমালা ২০১৮ এর ৩ (খ) অনুযায়ী অসদাচরণের পর্যায়ভুক্ত অপরাধ। তাঁর এ ধরনের আচরণের অভিযোগে বিভাগীয় মামলা রুজুর সিদ্ধান্ত হয়েছে।

ওই কর্মকর্তার বিরুদ্ধে সরকারি কর্মচারী বিধিমালা, ২০১৮ অনুযায়ী অসদাচরণের অভিযোগে বিভাগীয় মামলা রুজুর জন্য প্রতিবেদনের আলোকে খসড়া অভিযোগনামা ও অভিযোগ বিবরণী পাঠানোর জন্য নির্দেশক্রমে অনুরোধ করা হয়েছে।

এ বিষয়টি মোবাইল ফোনে নিশ্চিত করেছেন প্রাথমিক ও গণশিক্ষা মন্ত্রণালয়ের প্রশাসন অনুবিভাগের সিনিয়র সহকারী সচিব (তদন্ত ও শৃঙ্খলা) ফজলুর রহমান।

অবশ্য বিজ্ঞপ্তিতে কোনো প্রতিমন্ত্রীর নাম উল্লেখ করা হয়নি। খোঁজ নিয়ে জানা গেছে, অভিযুক্ত কর্মকর্তা তাবশিরা ইসলাম লিজার কর্মস্থল সাভার, এখানকার সংসদ সদস্য ডা. এনামুর রহমান এনাম। তিনি দুর্যোগ ব্যবস্থাপনা ও ত্রাণ প্রতিমন্ত্রী।

অভিযোগ ও মন্ত্রণালয় থেকে চিঠির বিষয়ে জানতে চাইলে অভিযুক্ত শিক্ষা কর্মকর্তা তাবশিরা ইসলাম লিজা আজকের পত্রিকাকে বলেন, ‘আমি এখনো এমন কোনো নোটিশ পাইনি। সরকারি অফিশিয়াল প্রসিডিউর তো, হয়তো একটু সময় লাগবে। এই বিষয়গুলো আমি আমার ডিপার্টমেন্টে ফেইস করব।’ অভিযোগের বিষয়ে তিনি কোনো মন্তব্য করতে চাননি। মৌখিকভাবেও তাঁকে এ বিষয়ে ঊর্ধ্বতন কেউ জানায়নি বলেও উল্লেখ করেন তাবশিরা ইসলাম।


Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এই বিভাগের আরও খবর