আজ ৪ঠা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৯শে জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

ছবি: মহেশখালীর প্রাকৃতিক বেষ্টনী ধ্বংসকারীদের শাস্তির দাবিতে গ্রীণ এসোসিয়েট অব বাংলাদেশ আয়োজিত প্রতিবাদ সমাবেশ

সোনাদিয়া দ্বীপ ও ঘটিভাঙার প্যারাবন রক্ষা করে সবুজ বনায়নের দাবি


আনোয়ার হাসান চৌধুরী, কক্সবাজারঃ সোনাদিয়া, ঘটিভাঙা ও কুতুবজোমের সবুজ বেষ্টনী প্যারাবন রক্ষা করে সবুজ বনায়নের দাবিতে মানববন্ধন ও প্রতিবাদ সমাবেশ করেছে পরিবেশবাদী সংগঠন গ্রীণ এসোসিয়েট অব বাংলাদেশ। সোমবার (৮ জুলাই) সকালে জেলার আদালত ভবন চত্বরে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ের সম্মুখে অনুষ্ঠিত এ মানববন্ধনে সমর্থন জানিয়েছে স্থানীয় বিভিন্নস্তরের নাগরিক।

প্রতিবাদ সমাবেশে প্যারাবন খেকো, ভূমিদস্যু, দখলবাজদের হাত থেকে সোনাদিয়ার জীববৈচিত্র ও নৈস্বর্গীক পরিবেশ রক্ষার দাবি জানানো হয়।

মহেশখালীর প্যারাবন খেকো প্রভাবশালীদের বিরুদ্ধে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহণ এবং নতুন প্যারাবন সৃজনের দাবি উত্থাপন করে সমাবেশে বক্তব্য রাখেন বিশিষ্ট সংগঠক সাদাত উল্লাহ খান, এডভোকেট সাহাব উদ্দিন, শহিদুল্লাহ মেম্বার, মাওলানা নুরুল হক, ইলিয়াছ মিয়া ও নুরুল আবছার প্রমুখ।

আরও পড়ুন কক্সবাজার থেকে ডিআইজি আপেল মাহমুদ বান্দরবানে বদলি, দায়িত্বে মনজুর মোরশেদ

গ্রীণ এসোসিয়েট অব বাংলাদেশের চেয়ারম্যান সাংবাদিক রফিকুল ইসলাম সোহেলের সঞ্চালনায় সমাবেশে বক্তারা বলেন, ‘সবুজ বেষ্টনী প্যারাবন দ্বীপের রক্ষাকবচ। যা জলোচ্ছ্বাস ও জানমাল রক্ষায় বিশেষ ভূমিকা রাখে। বিগত কয়েক বছরের ব্যবধানে মেগা প্রকল্প এবং ব্যক্তি বিশেষের হানায় সোনাদিয়া, ঘটিভাঙা, কুতুবজোম মৌজায় প্রায় ২০ হাজার একর সরকারি জমির সবুজ বনায়ন নিশ্চিহ্ন হয়েছে।

দ্বীপের প্যারাবন উজাড়কারিদের তালিকা করে সর্বোচ্চ শাস্তির দাবি জানিয়েছে গ্রীণ এসোসিয়েট অব বাংলাদেশ৷ সমাবেশ শেষে জেলা প্রশাসক বরাবর স্মারকলিপিও প্রদান করা হয়। স্মারকলিপি গ্রহণ করেন অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (রাজস্ব) বিভীষণ কান্তি দাশ।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর