আজ ১৮ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৩রা ডিসেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

গোপালগঞ্জ

শিশুদের করোনা টিকা গ্রহণে সড়ক প্রচার


গোপালগঞ্জে শিশুদের করোনা টিকা প্রয়োগে উদ্বুদ্ধ করতে সড়ক প্রচার অভিযান চালাচ্ছে জেলা তথ্য অফিস। ‘শিশু ও নারী উন্নয়নে সচেতনতামূলক যোগাযোগ কার্যক্রম (৫ম পর্যায় ) ১ম সংশোধনী’ প্রকল্পের সিফোরডি’র আওতায় ৫ থেকে ১১ বয়সী শিশুদের করোনা ভ্যাকসিন প্রদান বিষয়ক সড়ক প্রচার অভিযান কার্যক্রম চলছে জেলাব্যাপী। চলতি অক্টোবর থেকে এই সড়ক প্রচার অভিযান শুরু হয়েছে।

প্রতিমাসে ৬ দিন এই প্রচার চালানো হয়। দিনব্যাপী চলে সড়ক প্রচার অভিযান। আগামী নভেম্বর ও ডিসেম্বর পর্যন্ত এই সড়ক প্রচার অভিযান অব্যাহত থাকবে বলে জেলা তথ্য কর্মকর্তা মুঈনুল ইসলাম জানিয়েছেন। এই ৩ মাসে মোট ১৮ দিন সড়ক প্রচার চলবে জানিয়ে ওই কর্মকর্তা আরো বলেন, আমাদের সড়ক প্রচার গাড়ি জেলার ৫ উপজেলার গুরুত্বপূর্ণ সড়ক, হাট, বাজার ও পাবলিক প্লেসে দিনব্যাপী প্রচার অভিযান চালাচ্ছে। প্রচার মাইকে শিশুর ১৭ ডিজিটের জন্ম নিবন্ধনের মাধ্যমে সুরক্ষা এ্যাপ্সে প্রবেশ করে সুরক্ষা ওয়েভসাইডে রেজিস্ট্রেশন করতে অভিভাবকদের আহবান জানানো হচ্ছে। সুরক্ষা রেজিস্ট্রেশন নিয়ে সংশ্লিস্ট বিদ্যালয়ে গেলে স্বাস্থ্য কর্মীরা শিুদের করোনা টিকা প্রয়োগ করবেন। যেসব শিশুদের জন্ম নিবন্ধন নেই। তাদের ১৭ ডিজিটের নতুন জন্ম নিবন্ধন করে সুরক্ষা ওয়েভসাইডে রেজিস্ট্রেশন করে টিকা গ্রহণের জন্য সড়ক প্রচারে উদ্বুদ্ধ করা হচ্ছে। শিশুদের করোনা টিকা প্রয়োগ সফল করতে সড়ক প্রচার সফলভাবে পরিচালনা করা হচ্ছে। এতে অভিভাবকেদের মধ্যে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। তারা নিজ উদ্যোগে সুরক্ষা ওয়েভে শিশুদের রেজিস্ট্রেশন করছেন। স্কুলে শিশুদের নিয়ে গিয়ে টিকা প্রয়োগ নিশ্চিত করছেন। এতে শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে করোনা সংক্রমণ প্রতিরোধ করা সম্ভব হবে।

গোপালগঞ্জের সিভিল সার্জন ডা. নিয়াজ মোহাম্মদ জানিয়েছেন, জেলায় ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী শিশুদের করোনা টিকা প্রয়োগ শুরু হয়েছে। আমরা জেলার ৫ উপজেলার ১ লাখ ৮০ হাজার শিশুকে করোনা টিকা প্রয়োগ করব। শিশুদের ফাইজার কোম্পানির টিকা প্রয়োগ করা হচ্ছে। আমাদের স্বাস্থ্য কর্মীরা শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে গিয়ে ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী শিশুদের টিকা প্রয়োগ করছেন। আমরা গত ১১ অক্টোবর থেকে জেলায় ৫ থেকে ১১ বছর বয়সী শিশুদের করোনা টিকা প্রয়োগ শুরু করেছি। প্রথম দিন ১৭ হাজার ২৩০টি শিশুকে করোনার টিকা প্রয়োগ করেছি। এই জেলার শিশুদের কোভিট-১৯ টিকা প্রয়োগ কর্মসূচি অব্যাহত রয়েছে। টিকা গ্রহণে উদ্বুদ্ধ করতে জেলা তথ্য অফিস সড়ক প্রচার চালিয়ে যাচ্ছে। অভিভাবকরা শিশুদের টিকা প্রয়োগের জন্য জন্ম নিবন্ধনের মাধ্যমে সুরক্ষা ওয়েভে রেজিস্ট্রেশন করছেন। তারপর শিশুরা বিদ্যালয় থেকে টিকা গ্রহণ করছে। তথ্য অফিসের সড়ক প্রচারে অভিভাবকরা তাদের শিশুদের টিকা প্রয়োগ নিশ্চিত করতে রেজিস্ট্রেশন করছেন। টিকা প্রয়োগ করাচ্ছেন। সড়ক প্রচার এক্ষেত্রে সহায়ক হিসেবে কাজ করছে।
গোপালগঞ্জ শহরের মিয়াপাড়ার বাসিন্দা সঞ্জয় বিশ্বাস বলেন, আমার মেয়ে এসএম মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের ১ম শ্রেণির শিক্ষার্থী। জন্ম নিবন্ধনের মাধ্যমে সুরক্ষা ওয়েভে রেজিস্ট্রেশন করেছি। পরে আমার মেয়েকে বিদ্যালয়ে বসে স্বাস্থ্য কর্মীরা টিকা প্রয়োগ করেছে। স্কুলের প্রধান শিক্ষক সুরাইয়া খানম ও জেলা তথ্য অফিসের সড়ক প্রচারে উদ্বুদ্ধ হয়ে আমি আমার মেয়েকে টিকা প্রয়োগ করিয়েছি।

গোপালগঞ্জ শহরের এসএম মডেল সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক সুরাইয়া খানম বলেন, আমার স্কুলের শিক্ষার্থীরা সুরক্ষা ওয়েভে রেজিস্ট্রেশন করে করোনা টিকা গ্রহণ করেছে। এখানে ভালভাবে টিকা প্রয়োগ করা হয়েছে। এ কাজে প্রচার করেছে জেলা তথ্য অফিস। প্রচারে অভিভাবকরা উদ্বুদ্ধ হয়েছে। তাই এই কার্যক্রমে ব্যাপক সাড়া পড়েছে। আর টিকা প্রয়োগ করেছে স্বাস্থ্য বিভাগের কর্র্মীরা। এই জন্য তথ্য অফিস ও জেলা স্বাস্থ্য বিভাগকে আমরা ধন্যবাদ জানাই। এতে আমার বিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীরা করোনা সংক্রমন থেকে সুরক্ষিত থাকবে বলে আমি আশা করছি।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর