আজ ৩রা শ্রাবণ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৮ই জুলাই, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

জাতীয় শোক দিবস উপলক্ষ্যে চট্টগ্রাম শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের মাসব্যাপী নানা কর্মসূচি


মোঃ শোয়াইব,হাটহাজারী প্রতিনিধি:

চট্টগ্রামের হাটহাজারী উপজেলার ফরহাদাবাদস্থ সমাজসেবা অধিদফতর পরিচালিত শেখ রাসেল শিশু প্রশিক্ষণ ও পুনর্বাসন কেন্দ্রের উদ্যোগে জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এঁর ৪৭তম শাহাদাৎ বার্ষিকী ও জাতীয় শোক দিবস’২০২২ উপলক্ষ্যে মাসব্যাপী নানা কর্মসূচি গ্রহণ করা হয়েছে। তারই ধারাবাহিকতায় ১৭ আগস্ট’২০২২ তারিখ রোজ বুধবার দুপুর ১২টায় দেয়ালিকা উন্মোচন ,আলোচনা সভা,পুরস্কার বিতরণ ও বৃক্ষরোপণ কর্মসূচির আয়োজন করা হয়।

কেন্দ্রের উপপ্রকল্প পরিচালক জেসমিন আকতার এর সভাপতিত্বে উক্ত অনুষ্ঠানে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন হাটহাজারী উপজেলার উপজেলা নির্বাহী অফিসার মো: শাহিদুল আলম এবং বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তা ডাঃ সুরজিত দত্ত, বাংলাদেশ মুক্তিযোদ্ধা সংসদ, হাটহাজারী উপজেলার মুক্তিযোদ্ধা কমান্ডার মো: নুরুল আলম , ডেপুটি কমান্ডার মো: হোসেন এবং ১নং ফরহাদাবাদ ইউনিয়নের কমান্ডার মো: ইসমাইল ।

অনুষ্ঠানের শুরুতে প্রধান অতিথি বৃক্ষরোপণ কর্মসূচিতে অংশ নেন এবং শিশুদের তৈরিকৃত ‘আলোকবর্তিকা’ শিরোনামে বঙ্গবন্ধুর জীবন গাঁথা সম্বলিত দেয়ালিকার পঞ্চম সংখ্যা উন্মোচন করেন। কেন্দ্রের নিবাসী শিশু মোঃ ইমাম হোসেন এর পবিত্র কোরআন তেলাওয়াতের মধ্যেদিয়ে অনুষ্ঠানের মূল পর্ব আরম্ভ হয়। এরপর ফিজিক্যাল ইন্সট্রাক্টর গমন কান্তি দে এর সঞ্চালনায় অনুষ্ঠিত আলোচনা সভায় স্বাগত বক্তব্য রাখেন কেন্দ্রের নিবাসী শিশু সায়মা আক্তার।

উক্ত আলোচনা সভায় আলোচকবৃন্দ মুক্তিযুদ্ধের মহানায়ক জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান এর জীবনী সম্পর্কে আলোকপাত করেন। অনুষ্ঠানের প্রধান অতিথি বঙ্গবন্ধু ও তাঁর কনিষ্ঠ পুত্র শেখ রাসেলসহ অন্যান্য শহীদ পরিবার বর্গের প্রতি শ্রদ্ধা নিবেদনের সাথে সাথে স্মৃতিচারণ করেন।

প্রধান অতিথি বলেন- বঙ্গবন্ধু মানেই বাংলাদেশ,বংঙ্গবন্ধু তাঁর নিজের জীবনের চেয়ে দেশের কথা ভেবেছেন,দেশের মানুষের মুক্তির আর সমৃদ্ধির কথা ভেবেছেন। তিনি শিশুদেরকে মুক্তিযুদ্ধের সঠিক ইতিহাস জেনে বঙ্গবন্ধুর স্বপ্নকে বুকে ধারণ করে দেশপ্রেমে জাগ্রত হওয়ার আহবান জানান। আলোচনা সভার শেষভাগে নিবাসী শিশুদের কন্ঠে বঙ্গবন্ধুকে নিয়ে লেখা কবিতা আবৃত্তি ও গান শুনে আবেগাপ্লুত হয়ে পড়েন প্রধান অতিথিসহ উপস্থিত সকলেই। অনুষ্ঠানের শেষভাগে প্রধান অতিথি ও অন্যান্য অতিথিবৃন্দ রচনা প্রতিযোগিতা ‘ক’ দলের ও চিত্রাংকন ও হামদ-নাত প্রতিযোগিতার বিজয়ীদের মাঝে পুরস্কার বিতরণ করেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর