আজ ২৩শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৬ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

চন্দনাইশে দাওয়াতে খায়র ইজতিমায় লাখো মুসল্লির ঢল


মুহাম্মদ আরফাত হোসেনঃ চন্দনাইশ উপজেলার গাছবাড়িয়া সরকারি স্কুল এন্ড কলেজ ময়দানে গতকাল ১৩ জানুয়ারি সকাল ৮টা থেকে দাওয়াতে খায়র ইজতিমা শুরু হয়। ইজতিমায় যোগ দিতে ভোর থেকে দূরদূরান্ত থেকে লাখো মানুষ বাস, মোটর সাইকেল ও পায়ে হেঁটে ইজতিমায় অংশগ্রহণ করেন। মুয়াল্লিম মাওলানা এমরান হোসেনের সঞ্চালনায় ইজতিমা শুরু হয়। প্রধান মুয়াল্লিম আল্লামা এম. এ. মান্নান দাওয়াতে খায়র এর ফজিলত ও গুরুত্বের উপর মূল বক্তব্য উপস্থাপন করেন।

এছাড়া দিনব্যাপী দাওয়াতে খায়র ইজতিমায় ইসলামী শরীয়তের আহকাম। ইমান, আক্কীদা, আমল ও বিধি বিধানের উপর গুরুত্বপূর্ণ বয়ান দেন শায়খুল হাদিস আল্লামা হাফেজ সোলায়মান আনসারী, আল্লামা মুফতি আবদুল ওয়াজেদ, আল্লামা হাফেজ আশরাফুজ্জামান আল কাদেরী, মাওলানা হারুন উর রশীদ চৌধুরী, অধ্যক্ষ শাহ খলিলুর রহমান নিজামী, মাওলানা জুলফিকার আলী, মাওলানা বদিউল আলম রিজভী, ড. মাওলানা সাইফুল আলম, অধ্যাপক মাওলনা আবদুন নুর আনসারী, মাওলানা মুফতি আহমদ হোসাইন আল কাদেরী, ড. মাওলানা ইসমাইল নোমানী, মাওলানা মুহাম্মদ সিরাজুল ইসলাম কাদেরী, অধ্যাপক মাওলানা সৈয়দ জালাল উদ্দীন আল আজাহারী, মাওলানা সোলাইমান ফারুকী, হাফেজ মাওলানা আনিসুজ্জামানসহ ৩৬টি বিষয়ে ৩৬ জন মুয়াল্লিম বয়ানে অংশগ্রহণ করেন। ইজতিমায় দাওয়াতে খায়র এর প্রধান মুয়াল্লিম আল্লামা এ. এ. মান্নান দাওয়াতে খায়র এবং জুমার ফজিলতের উপর গুরুত্বপূর্ণ বয়ান উপস্থাপন করে বলেন, ইসলামের সার্বজনীন আহবান সর্বস্তরের মানবজাতির কাছে পৌঁছিয়ে দিতে দাওয়াতের গরুত্বপূর্ণ অপরিসীম। দাওয়াতে খায়র এর মূলকাজ হচ্ছে ইসলামের পথে সাধারণ মানুষকে আহ্বান করা। ইসলামের সকল আরকাম এবং আহকামের বিষয়ে সাধারণ মুসলমানদের প্রশিক্ষণ দেয়া মৌলিক আকীদা বিষয়ে সচেতন করা। তিনি বলেন, জুমার দিন এবং জুমার নামাজ ধর্মপ্রাণ মুসলমানদের কাছে গুরুত্বপূর্ণ দিন ও আমল । ইজতিমায় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম-১৪ আসনের সংসদ সদস্য আলহাজ্ব নজরুল ইসলাম চৌধুরী, চন্দনাইশ উপজেলা পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুল জব্বার চৌধুরী, উপজেলা আ’লীগের সভাপতি জাহিদুল ইসলাম জাহাঙ্গীর। দাওয়াতে খায়র ইজতিমায় অন্যান্যদের মধ্যে উপস্থিত ছিলেন, দাওয়াত খায়র বাস্তবায়ন কেন্দ্রীয় কমিটির আলহাজ্ব পেয়ার মুহাম্মদ কমিশনার, আলহাজ্ব আনোয়ারুল হক, আলহাজ্ব আবদুল হামিদ, শাহজাদা ইবনে দিদার, এড. মোছাহেব উদ্দীন বখতিয়ার, মাহবুব ইলাহি সিকদার, মাহবুবুল হক খান, অধ্যক্ষ আবু তালেব, দক্ষিণ জেলা দাওয়াতে খায়ের বাস্তবায়ন কমিটির আলহাজ্ব কমরুদ্দিন সবুর, মহানগরের তসকির আহমদ মাওলানা আবদুল্লাহ উত্তর জেলার জমির উদ্দীন মাষ্টার, এড. জাহাঙ্গীর আলম চৌধুরী, হাবীব উল্লাহ মাষ্টার, ওবায়দুল হক হক্কানী, নেজামত আলী বাবুল, হারুনুর রশীদ, শেখ সালাউদ্দীন মোজাফফর আহমদ, আবুল মনসুর, অধ্যাপক আবদুল মান্নান, হাজী শফিকুল ইসলাম, মাওলানা গফুর খান, নজরুল ইসলাম, মোজাম্মেল হক তালুকদার, মাওলানা নুরুল ইসলাম, এরশাদ খতিবী, দস্তগীর প্রমুখ। পরে এশার নামাজ ও আখেরি মোনাজাতের মাধ্যমে ইজতেমার সমাপ্তি হয়।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর