আজ ১লা বৈশাখ, ১৪৩০ বঙ্গাব্দ, ১৪ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

চট্টগ্রামে আন্তর্জাতিক যাদুঘর দিবস পালিত


নিজস্ব প্রতিবেদক 

আড়াই হাজার বছরের প্রাচীন পুরাকৃর্তি রক্ষা ও সংরক্ষণ করে চট্টগ্রামে নগর মিউজিয়াম প্রতিষ্ঠার দাবী ১৮ মে আন্তর্জাতিক জাদুঘর দিবস ২০২৩ উপলক্ষে চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের (সিএইচআরসি) উদ্যোগে বৃহস্পতিবার সকালে চট্টগ্রাম প্রেসক্লাবের সম্মুখে মানববন্ধন ও সংক্ষিপ্ত আলোচনা, দুপুরে চট্টগ্রামের প্রাচীন প্রত্ন সম্পদ, প্রাচীন স্থাপনা গুলো সরকারী উদ্যোগে স্থায়ী ভাবে সংরক্ষণপূর্বক চট্টগ্রাম নগরীতে চট্টগ্রামের জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে চট্টগ্রাম নগর মিউজিয়াম প্রতিষ্ঠার দাবীতে স্মারকলিপি প্রদান করেছেন চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক বরাবরে। চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসকের পক্ষে অতিরিক্ত জেলা প্রশাসক (সার্বিক) রাকিব হাসান স্মারকলিপি গ্রহণ করেন।

এই সময় উপস্থিত ছিলেন চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের সভাপতি ইতিহাসবেত্তা সোহেল মুহাম্মদ ফখরুদ-দীন, মাসিক আলোর পথের সম্পাদক মোহাম্মদ সোহেল তাজ, চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্রের ভারপ্রাপ্ত সাধারণ সম্পাদক উদয়ন বড়ুয়া ঝুন্টু, প্রচার সম্পাদক দেলোয়ার হোসেন মানিক, সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, অধ্যাপক দিদারুল আলম চৌধুরী, নয়ন বড়ুয়া, অমর কান্তি দত্ত, পাভেল রহমান, সুজন প্রমূখ। স্মারকলিপি প্রদান ও স্মারকলিপিতে বলা হয়েছে, বিশ্ব যাদুঘর দিবস একটি ঐতিহাসিক দিন। সারা পৃথিবীর মানুষের সাথে বাংলাদেশও এই দিবসটি যথাযথ মর্যাদায় পালন করছে।

চট্টগ্রামের কালজয়ী ইতিহাসের গৌরবময় স্বাক্ষী যথাক্রমে- পৃথিবীর আদি ইতিহাসের (মহাভারতে উল্লেখিত) হিন্দু ধর্মীয় সভ্যতার প্রাচীনতম নিদর্শন মহেশখালীর আদিনাথ মন্দির-মৈনাক পর্বত (কক্সবাজার), সীতাকুন্ডের চন্দ্রনাথ মন্দির, বীরপক্ষ ও পাহাড় (চট্টগ্রাম), ঐতিহাসিক কাঞ্চননাথ মন্দির (ভাঙা মন্দির, ফটিকছড়ি, চট্টগ্রাম), পৃথিবীর প্রথম হিন্দু ধর্মীয় দূর্গা পূজার অতি পবিত্র স্থান মেধস মুনির আশ্রম (করলডেঙ্গা পাহাড়, বোয়ালখালী, চট্টগ্রাম), বৌদ্ধ ধর্মীয় সভ্যতার নিদর্শন গৌতম বুদ্ধের স্মৃতিবিজড়িত ঐতিহাসিক কক্সবাজারস্থ রামুর রানকোট বিহার, মুসলিম ধর্মীয় সভ্যতার স্মারক বদর পীরের সমাধি ও সুলতান বায়েজিদ বোস্তামীর সমাধি ও মসজিদ (চট্টগ্রাম), প্রাচীন কিরাত (চট্টগ্রামের আদি নাম) আমলের চন্দনাইশস্থ বরমা গ্রামে অবস্থিত জৈন্য রাজার রাজবাড়ী (শঙ্ক নদীর তীর, ছেবন্দী), বাংলার বিখ্যাত লোকসাহিত্যের অমর প্রেমকাহিনী মলকা বানু-মনু মিয়ার স্মৃতি বিজড়িত বাঁশখালীর মলকা বানু মসজিদ, আনোয়ারার মনু মিয়া মসজিদ, চট্টগ্রাম নগরীর আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ, কদম মোবারক মসজিদ (চট্টগ্রাম), সুলতানী আমলের নির্মিত ঐতিহাসিক হাটহাজারীর ফকিরা মসজিদ, সীতাকুন্ডের হাম্মাদিয়া মসজিদ, চন্দনাইশের বাগিছা হাটস্থ খান মসজিদ, লোহাগাড়ার জঙ্গলপাহাড়স্থ আদু খাঁর মসজিদ, চট্টগ্রাম নগরীর নবাব ওয়ালী বেগ খাঁ মসজিদ, পটিয়া উপজেলার আনোয়ার আলী চৌধুরী জামে মসজিদ, কর্ণফুলী উপজেলার ইলিয়াস খান জামে মসজিদ, উপমহাদেশের হিন্দুধর্মীয় সবচেয়ে প্রাচীনতম হাজার বছরের অধিক পুরানো আনোয়ারাস্থ পরৈকোড়া নরসিংহ মন্দির, বাঁশখালীর সুপ্রাচীন হিন্দু মন্দির (বাণীগ্রাম), পটিয়াস্থ মুজাফরাবাদে অবস্থিত জোড় মন্দির, দেয়াং পাহাড়ের চূড়ায় ঐতিহাসিক মনসা পুঁথির স্মৃতিবিজড়িত চাঁদ সওদাগরের দিঘী এবং বৌদ্ধ ধর্মীয় ও প্রাচীন যুগের স্মারক ঐতিহাসিক পন্ডিত বিহারের বিশ্ববিদ্যালয় চট্টগ্রামে আবিষ্কারের স্থান পশ্চিম পটিয়ার বড় উঠানকে প্রত্নতত্ত্ব খনন জরিপের মাধ্যমে সংরক্ষন ও প্রত্ন আইনে যাদুঘর বিভাগে সরকারী ভাবে গ্রহণ করার দাবী জানান। স্মারকলিপি প্রদানকালে নেতৃবৃন্দরা বলেছেন, বাংলাদেশের অতিপ্রাচীনতম এই চট্টগ্রাম জেলা শহর ও বন্দর নগরী চট্টগ্রাম। ইতিহাসের পাতায় পাতায় এই প্রাচীন চট্টগ্রামের অবস্থান। দূর্ভাগ্য হলেও সত্য যে, এই চট্টগ্রামে নগর ভিত্তিক কোন নগর মিউজিয়াম আজও গড়ে উঠেনি।

স্মারকলিপিতে চট্টগ্রাম নগরীর ঐতিহাসিক ঐতিহ্যগুলোকে আলোকচিত্রের মাধ্যমে এবং এই প্রাচীন চট্টগ্রামের আদি ইতিহাসগুলো তুলে ধরে চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসনের উদ্যোগে জেলা প্রশাসকের কার্যালয়ে দুই কক্ষ বিশিষ্ট একটি নগর মিউজিয়াম প্রতিষ্ঠা করার দাবী জানান।

এই নগর মিউজিয়ামে পৃথিবীর উন্নত প্রযুক্তির রাষ্ট্রের মত সভ্যতার স্মারকগুলো তুলে ধরা হবে। যা থেকে আগামী প্রজন্ম অনেক কিছু জানতে পারবে এবং বাংলাদেশে আগমনকৃত পর্যটকগণ এটি ভ্রমণ ও পরিদর্শন করে এই অঞ্চলের ইতিহাস জানতে পারবে।

এই বিষয়ে চট্টগ্রামের মাননীয় জেলা প্রশাসকের আশু হস্তক্ষেপ কামনা করেছে চট্টগ্রাম ইতিহাস চর্চা কেন্দ্র।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর