আজ ৮ই জ্যৈষ্ঠ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ২২শে মে, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

বান্দরবানে যৌথ অভিযানের নামে গণগ্রেফতার বন্ধ করার দাবিতে চবিতে মানববন্ধন


চবি প্রতিনিধি

বান্দরবানে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী ক্রয়ের ওপর নিষেধাজ্ঞা প্রত্যাহার করে গ্রেফতারকৃত সাধারণ মানুষের নিঃশর্ত মুক্তির দাবিতে চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয়ে মানববন্ধন করেছে নিপীড়ন বিরোধী শিক্ষার্থীরা।

সোমবার সকাল ১০ টায় ক্যাম্পাসের শহীদ মিনার প্রাঙ্গনে এ মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়।এতে বিশ্ববিদ্যালয়ের বিভিন্ন বিভাগের নিপীড়ন বিরোধী শিক্ষার্থীরা অংশ নেন।

উক্ত মানববন্ধনে সাধারণ শিক্ষার্থী হিসেবে বক্তব্য রাখেন বিএমএসসি’র পক্ষ থেকে রাম্রা সাইন মারমা, নৃবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষার্থী ধন কিশোর ত্রিপুরা, সংহতি জানিয়ে বক্তব্য রেখেছেন গণতান্ত্রিক ছাত্র কাউন্সিলের ধ্রব বড়ুয়া, বৃহত্তর পার্বত্য চট্টগ্রামের পাহাড়ি ছাত্র পরিষদের সভাপতি রোনাল চাকমা, বিপ্লবী ছাত্র মৈত্রীর জশদ জাকির এবং  সঞ্চালনার দায়িত্ব পালন করেন সাধারণ শিক্ষার্থী সুদর্শন চাকমা।

উক্ত মানববন্ধনে বক্তারা অভিযোগ করেন, বান্দরবানের ব্যাংক ডাকাতিকে কেন্দ্র করে স্থানীয় লোকজনের উপর  নানাধরনের  নিষেধাজ্ঞা জারি করেছে। এতে স্থানীয়রা প্রয়োজনীয় দ্রব্য সামগ্রী ক্রয় করতে পারছে না এবং সাধারণ মানুষকে গ্রেফতার করা হচ্ছে।

এসময় বক্তারা আরও বলেন,’গত ২ ও ৩ এপ্রিল বান্দরবানের রুমা ও থানচিতে ব্যাংক ডাকাতি সংঘটিত হয়। এ ঘটনায় ঈদের ছুটিতে বাড়ি যাওয়া শিক্ষক, কলেজ-বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থী, শিশু ও গর্ভবতী নারী সহ মোট ৭৮ জনকে গণ-গ্রেফতার করে কারাগারে পাঠানো হয়েছে। আমাদের অনেক সহপাঠী বাড়ি গিয়ে বিশ্ববিদ্যালয়ের ক্যাম্পাসে ফিরতে পারেনি। আমরা তাদের সাথে কথা বলে এবং বিভিন্ন পত্র- পত্রিকার মাধ্যমে জেনেছি যে, সেখানে নিত্য প্রয়োজনীয় দ্রব্য ক্রয়ের উপর নিষেধাজ্ঞাসহ গ্রামবাসীদের হয়রানি, হামলাসহ যৌথ বাহিনীর নিয়মিত সামরিক অভিযান চলছে।

বান্দরবানে বম জাতিসত্ত্বাদের অনেক গ্রাম এখন  জনশূন্য। তারা হয় অভ্যন্তরীণ উদ্বাস্তু না হয় পাশ্ববর্তী মিজোরামে শরনার্থী হিসেবে আশ্রয় নিয়েছে। স্বাধীন দেশে এমন অমানবিক পরিস্থিতি আমাদেরকে শঙ্কিত ও ক্ষুব্ধ করে তোলে।আমরা এই অবিচারের বিরুদ্ধে তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি।’


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর