আজ ১২ই অগ্রহায়ণ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৭শে নভেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

রিজার্ভ

চড়া দামের ডলারে আমদানি ব্যয়, কমছে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ


আমদানি ব্যয় মেটাতে গিয়ে ডলার কিনতে হচ্ছে চড়া দামে। আর এতে প্রতি মাসে কমছে ৮ বিলিয়ন ডলার। এ কারণে দ্রুত কমছে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ। বর্তমানে যে রিজার্ভ আছে তা দিয়ে সাড়ে ৪ মাসের বেশি আমদানি ব্যয় মেটানো সম্ভব হবে না বলে জানিয়েছে কেন্দ্রীয় ব্যাংক।

কেন্দ্রীয় ব্যাংকের তথ্যানুযায়ী, গত বুধবার (৭ সেপ্টেম্বর) রিজার্ভ ছিল ৩৮ দশমিক ৯৪ বিলিয়ন ডলার। বৃহস্পতিবার আমদানির অর্থ বাবদ ১৭৩ কোটি ৫০ লাখ ডলার (১ দশমিক ৭৩৫ বিলিয়ন) পরিশোধের পর তা তিন হাজার ৭০৬ কোটি (৩৭ দশমিক ০৬ বিলিয়ন) ডলারে নেমে এসেছে। গত বছর আগস্ট মাসের শেষ সপ্তাহে রিজার্ভের পরিমাণ ছিল ৪৮ দশমিক ৬০ বিলিয়ন ডলার।

আমদানি ব্যয় মেটাতে প্রতি ডলার ৯৫ টাকা দামে কিনতে হচ্ছে, যা আগে ছিল ৮৬ টাকা। এখান থেকে এক টাকা বেশি দরে গ্রাহকের কাছে ডলার বিক্রি করতে পারবে ব্যাংকগুলো। কিন্তু ব্যাংকগুলোতে আন্তঃব্যাংক দামে কোনো ডলার লেনদেন হচ্ছে না।

ব্যাংকগুলো বিদেশ থেকে রেমিট্যান্স আহরণ করতে প্রতি ডলারের জন্য ১০৪ থেকে ১০৭ টাকা পর্যন্ত ব্যয় করছে। কিন্তু রফতানিকারকদের কাছ থেকে অপেক্ষাকৃত কম দামে অর্থাৎ প্রতি ডলার ১০০ টাকার নিচে সংগ্রহ করছে। যেগুলো রফতানি বিল নগদায়নে ১০১ থেকে ১০৩ টাকা দিতে হচ্ছে। এভাবে বিভিন্ন দরে ডলার কিনে ব্যাংকগুলো দাম সমন্বয় করছে।

দেশে বৈদেশিক মুদ্রার রিজার্ভ কমে এখন ৩৭ দশমিক ৬ বিলিয়ন ডলারের ঘরে। এর আগে, ২০২০ সালের ২৯ জুলাই রিজার্ভ ৩৭ দশমিক ১১ বিলিয়ন ডলারে হয়েছিল।


Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এই বিভাগের আরও খবর