আজ ২৪শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৭ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

চন্দনাইশে সরকারি ভর্তুকিতে অর্ধেক মূল্যে কৃষকদের মাঝে কম্বাইন হারভেষ্টার ও পাওয়ার থ্রেসার বিতরণ


মোঃ কামরুল ইসলাম মোস্তফা, চন্দনাইশঃ

সমন্বিত ব্যবস্থাপনার মাধ্যমে কৃষি যান্ত্রিকীকরন প্রকল্পের আওতায় চট্টগ্রামের চন্দনাইশে ৫০℅ সরকারি উন্নয়ন সহায়তা (ভর্তুকি) মূল্যে ধান কাটা, মাড়াই, ঝাড়াই ও বস্তাবন্দী করার আধুনিক যন্ত্র কম্বাইন হারভেস্টার ও পাওয়ার থ্রেসার মেশিন বিতরণ করা হয়েছে। উপজেলা কৃষি সম্প্রসারণ অধিদপ্তরের আয়োজনে বুধবার (১৪ ডিসেম্বর) দুপুরে উপজেলা পরিষদ কার্যালয় চত্বরে পূর্ব চন্দনাইশ চৌধুরী পাড়ার মো. শাহ্ নেওয়াজ চৌধুরী, পূর্ব হাছনদন্ডী সাইফুদ্দীন খান, চন্দনাই পৌরসভার সেলিম চৌধুরী, বরমার সৈয়দ ওসমান গনী, বরকলের মহসিনুল আলম খান ও বরকলের নুরুল আনোয়ারকে কম্বাইন্ড হারভেস্টার এবং মধ্যম চন্দনাইশের শফিউল আলম, পূর্ব জোয়রার আবু সুফিয়ান, বরমার রনি দত্ত ও দোহাজারী পৌরসভার রফিক মিয়াকে পাওয়ার থ্রেসার মেশিনের চাবি তুলে দেন চট্টগ্রাম-১৪ আসনের সংসদ সদস্য বীর মুক্তিযোদ্ধা আলহাজ্ব মো. নজরুল ইসলাম চৌধুরী।

উপজেলা নির্বাহী অফিসার নাছরীন আক্তারের সভাপতিত্বে চাবি হস্তান্তর অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন চন্দনাইশ উপজেলা পরিষদ চেয়ারম্যান আলহাজ্ব মোহাম্মদ আবদুল জব্বার চৌধুরী, চন্দনাইশ পৌরসভার মেয়র মাহবুবুল আলম খোকা, সহকারী কমিশনার (ভূমি) জিমরান মোহাম্মদ সায়েক, থানা অফিসার ইনচার্জ মো. আনোয়ার হোসেন, উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা কৃষিবিদ স্মৃতি রাণী সরকার, উপজেলা মাধ্যমিক শিক্ষা কর্মকর্তা রতন কুমার সাহা, উপজেলা শিক্ষা কর্মকর্তা শাখাওয়াত হোসেন, উপজেলা আওয়ামী লীগ প্রচার সম্পাদক হেলাল উদ্দীন চৌধুরী, উপজেলা কৃষকলীগ সাধারণ সম্পাদক নবাব আলী, উপ সহকারী উদ্ভিদ সংরক্ষণ কর্মকর্তা ইশতিয়াক আহমদ আরিফ, উপ সহকারী কৃষি অফিসার মানেশ দে, মৃণাল কান্তি দাশ, চন্দনাইশ পৌরসভা যুবলীগ সাধারণ সম্পাদক সিরাজুল ইসলাম চৌধুরী, হাশিমপুর ইউনিয়ন যুবলীগ আহবায়ক সাইফুল ইসলাম, উপজেলা তাতী লীগ সভাপতি জাহাঙ্গীর আলম, সাবেক দোহাজারী ইউপি সদস্য নাজিম উদ্দীন, যুব সংগঠক বদিউল আলম, ছাত্রলীগ নেতা নাহিয়ান হোজাইফ রনি প্রমূখ। সরকারি ভর্তুকিতে ৩১ লাখ টাকা মূলের কম্বাইন হারভেষ্টার ও ১ লাখ ৭০ হাজার টাকা মূল্যের পাওয়ার থ্রেসার মেশিন অর্ধেক মূল্যে পেয়ে দারুন খুশি কৃষকেরা। চাবি হস্তান্তরকালে নজরুল ইসলাম চৌধুরী এমপি বলেন, “জননেত্রী শেখ হাসিনার নেতৃত্বাধীন আওয়ামী লীগ সরকার কৃষিবান্ধব সরকার। কৃষকদের সেবা, কৃষির উন্নয়নে নিরলসভাবে কাজ করে যাচ্ছে বর্তমান সরকার। চাষাবাদে আগ্রহী করতে সরকার বিনামূল্যে সার, কীটনাশক, বীজ, কৃষি উপকরণ বিতরণ করে যাচ্ছেন। সহজশর্তে, বিনাসুদে ঋণ বিতরণের মাধ্যমে কৃষকদের সহযোগিতা করে যাচ্ছেন। ফসল কাটার মৌসুমে দেশে শ্রমিক সংকট থাকে। ফলে ফসল কাটতে কৃষকের বাড়তি টাকা ব্যয় করতে হয়। এতে ফসলের খরচ বেড়ে যায়।

এ সমস্যা সমাধানে কম্বাইন হারভেস্টার ও পাওয়ার থ্রেসার ভূমিকা রাখবে। সরকারের এ উদ্যোগের ফলে কৃষি ক্ষেত্রে বৈপ্লবিক উন্নতি হবে।” উপজেলা কৃষি কর্মকর্তা স্মৃতি রাণী সরকার বলেন, বাংলাদেশের জমি ও ফসল উপযোগী অত্যাধুনিক সেন্সর বিশিষ্ট কম্বাইন হারভেস্টার দিয়ে কাঁদাযুক্ত জমিতে ও শুয়ে পড়া ধান/গম সহজে কাটা, মাড়াই, ঝাড়াই ও বস্তাবন্দী করা যায়। এক একর জমির ধান/গম কাটতে সময় লাগে মাত্র এক ঘণ্টা। আর এতে জ্বালানি খরচ হয় মাত্র ৮-১০ লিটার ডিজেল। প্রতি একরে খরচ বাদে লাভ হয় ৩ হাজার ৫০০ থেকে ৪ হাজার টাকা। এতে খরচ বাঁচে ৬১ শতাংশ ও শ্রম বাঁচে ৭০ শতাংশ। এ হারভেস্টার দিয়ে দিনে প্রায় ৬-৭ একর জমির ধান কাঁটা যায়। অত্যাধুনিক প্রযুক্তির এ কম্বাইন হারভেস্টার ব্যবহারের ফলে একদিকে যেমন কৃষক উপকৃত হবে অন্যদিকে দেশের খাদ্য নিরাপত্তা নিশ্চিত হবে।”


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর