আজ ২২শে মাঘ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ৫ই ফেব্রুয়ারি, ২০২৩ খ্রিস্টাব্দ

চট্টগ্রাম ট্যুরিষ্ট পুলিশ রিজিয়নের বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ শীর্ষক আলোচনা


নিজস্ব প্রতিবেদক

শুক্রবার (১৬ ডিসেম্বর) মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে বঙ্গবন্ধু ও বাংলাদেশ শীর্ষক আলোচনা সভা কাজীর দেউরি রোটারী ক্লাব কনফারেন্স হলে অনুষ্ঠিত হয়।

আলোচনা সভায় প্রধান আলোচক ছিলেন সমাজবিজ্ঞানী একুশে পদকপ্রাপ্ত প্রিমিয়ার ইউনিভার্সিটির ভাইস চ্যান্সেলর প্রফেসর ডাঃ অনুপম সেন। বিশেষ আলোচক চট্টগ্রাম উত্তর জেলা আওয়ামীলীগ যুগ্ম সাধারণ সম্পাদক ও সওক এর বোর্ড সদস্য সওক জসিম উদ্দিন শাহ, কেন্দ্রীয় সমবায় ব্যাংক লিমিটেড এর পরিচালক ও চট্টগ্রাম মহানগর আওয়ামী যুবলীগের সংগঠক মোঃ সাজ্জাদ।

চট্টগ্রাম রিজিয়নের পুলিশ সুপার আপেল মাহমুদ-এর সভাপতিত্বে পবিত্র কুরআন তেলোয়াত ও গীতা পাঠের মাধ্যমে অনুষ্ঠানের সূচনা করা হয়। এবং জাতির পিতা বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের ৭ ই মার্চের ভাষণ উপস্থিত অতিথিদের শুনানো হয়। উদ্বোধনী বক্তব্যে পুলিশ সুপার আপেল মাহমুদ বলেন, লক্ষ প্রাণ এবং দুই লক্ষ মা- বোনের ইজ্জতের বিনিময়ে আজকের এই স্বাধীনতা। বঙ্গবন্ধু আহবানে মাতৃভুমির টানে সাড়া দিয়ে বাঙালিরা ঝাপিয়ে পড়েছিল মহান মুক্তিযুদ্ধে। আপামর জনতার অংশগ্রহণে ফলশ্রুতিতে অর্জিত হয়েছিল বাংলাদেশের স্বাধীনতা। তাইতো বিজয় দিবসকে কেন্দ্র করে উৎসবে মেতে উঠে নতুন প্রজন্ম।

প্রধান আলোচক ভাইস-চ্যান্সেলর ডঃ অনুপম সেন তার বক্তব্যে বাংলাদেশের ইতিহাস ভাষা আন্দোলন, পাকিস্তানের শাসন আমল এবং স্বাধীনতাবিরোধী চক্রের সাথে বঙ্গবন্ধুর দীর্ঘ সংগ্রাম, রাজনৈতিক কর্মজীবন এবং সংশ্লিষ্ট বিভিন্ন বিষয় বিস্তারিতভাবে তরুণ প্রজন্মের সামনে তুলে ধরেন। তিনি বঙ্গবন্ধু কন্যা প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনার সরকারের সাফল্য এবং তার দেশ নিয়ে সূদুর প্রসারী পরিকল্পনা এবং উত্তরোত্তর কামনা করেন। তিনি আরো বলেন বঙ্গবন্ধুর নেতৃত্বে গড়া এবং মুক্তিযুদ্ধের মাধ্যমে পরিশুদ্ধ এই জাতি কখনো কারো কাছে মাথা নত করবে না।

বিশেষ অতিথি বক্তারা বলেন, পাকিস্তান আমলের শোষণ ও বৈষম্য বিরুদ্ধে আজীবন সংগ্রাম করে গেছেন জাতির জনক বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমান। ১৯৭১ সালে বঙ্গবন্ধুর ডাকে ও নেতৃত্বে আমরা যদি স্বাধীন না হতাম। তাহলে আজও বৈষম্য ও নিগ্রহের শিকার হতাম।বঙ্গবন্ধু মুক্তিযুদ্ধ ও বাংলাদেশ এক অভিন্ন। বাংলাদেশ সরকার, সকল শহীদ, মুক্তিযোদ্ধাদের কল্যান ও মাগফেরাত কামনা করে আলোচনা সমাপ্তি ঘোষণা করেন।

এছাড়াও পুলিশ সুপার আপেল মাহমুদ গরীব উল্লাহ শাহ মাজার এলাকায় ৩০০ দুস্থ এবং এতিমদের মাঝে মহান বিজয় দিবস উপলক্ষে মিষ্টি বিতরণ করেন।


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর