আজ ৪ঠা বৈশাখ, ১৪৩১ বঙ্গাব্দ, ১৭ই এপ্রিল, ২০২৪ খ্রিস্টাব্দ

সংগৃহীত ছবি

চিটাগাং-ওয়েলস চেম্বারের সমঝোতা স্মারক স্বাক্ষরিত


চিটাগাং চেম্বার অব কমার্স এন্ড ইন্ডাস্ট্রি’র সাথে যুক্তরাজ্যের চেম্বার ওয়েলস’র মধ্যে স্মারক স্বাক্ষরিত হয়েছে। মঙ্গলবার (৩০ নভেম্বর) ওয়ার্ল্ড ট্রেড সেন্টারস্থ বঙ্গবন্ধু কনফারেন্স হলে এ উপলক্ষে দু’দেশের ব্যবসায়ীরা মতবিনিময় করেন। সমঝোতায় চেম্বারের পক্ষে সভাপতি মাহবুবুল আলম এবং ওয়েলস’র পক্ষে নির্বাহী সভাপতি পিটার পল স্লেভিন স্বাক্ষর করেন।

এ প্রসঙ্গে চেম্বার সভাপতি মাহবুবুল আলম জানান, বাংলাদেশের গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য অংশীদার হচ্ছে যুক্তরাজ্য। চলতি বছরে বাংলাদেশ থেকে প্রায় ৩ দশমিক ১ বিলিয়ন পাউন্ড মূল্যের পণ্য যুক্তরাজ্যে রপ্তানি করা হয়েছে এবং যুক্তরাজ্য থেকে বাংলাদেশে ৯০১ মিলিয়ন পাউন্ড আমদানি করা হয়েছে। উভয় দেশের মধ্যে বিনিয়োগ এবং পণ্য আমদানি-রপ্তানির দারুণ সুযোগ রয়েছে। সরকার দেশের অর্থনীতিকে বেগবান করতে ১০০ টি বিশেষায়িত শিল্পাঞ্চল ঘোষণা করার ফলে চট্টগ্রাম দেশের ইন্ডাস্ট্রিয়াল হাবে পরিণত হয়েছে। তাই চট্টগ্রামের ভৌগোলিক সুবিধা কাজে লাগিয়ে যুক্তরাজ্যের চেম্বার ওয়েলস’র প্রতিনিধিদলকে বিনিয়োগ করার আহবান জানান চেম্বার সভাপতি।

পিটার পল স্লেভিন বলেন, ভৌগোলিক কারণে বাংলাদেশের মধ্যে চট্টগ্রাম গুরুত্বপূর্ণ। এখানে ব্যবসায়ের ক্রমাগত পরিসর বৃদ্ধি, কর্মসংস্থান এবং অংশীদারীত্বমূলক বিনিয়োগের কারণে চেম্বার ওয়েলস’র বিনিয়োগকারীরা বিনিয়োগে আগ্রহী। তিনি চট্টগ্রামে শিক্ষা, টেকনোলজি, হেলথ কেয়ার, শিপিংসহ বিভিন্ন ক্ষেত্রে বিনিয়োগ সম্ভাবনার উল্লেখ করেন।

চেম্বার সিনিয়র সহ-সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন বলেন, প্রধানমন্ত্রী শেখ হাসিনা চট্টগ্রামের সম্ভাবনাকে উপলব্ধি করে প্রায় ১০ বিলিয়ন মার্কিন ডলারের অবকাঠামোগত উন্নয়ন প্রকল্প বাস্তবায়ন করেছে, যার মধ্যে দেশের বৃহত্তম বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিব শিল্প নগর, মাতারবাড়ী গভীর সমুদ্র বন্দর, বঙ্গবন্ধু টানেল অন্যতম। তিনি চট্টগ্রামে হেলথ এবং এডুকেশন সেক্টরে সম্ভাবনা কাজে লাগিয়ে অংশীদারিত্বের ভিত্তিতে যৌথ বিনিয়োগের আহবান জানান।

ইন্টারলিংক বিজনেস কনসালটেন্সি মাহবুব নূর বলেন, বাংলাদেশ এবং যুক্তরাজ্য চেম্বার ওয়েলস’র মধ্যে এসএমই সেক্টরে বিনিয়োগের প্রচুর সম্ভাবনা রয়েছে। এ ধরণের বি-টু-বি আলোচনার মাধ্যমে উভয় দেশের মধ্যে বিনিয়োগ সম্ভাবনা বাড়বে। এছাড়া শিক্ষা, স্বাস্থ্য ও প্রযুক্তি খাতে বিনিয়োগের সম্ভাবনা রয়েছে বলে তিনি উল্লেখ করেন।

চেম্বার প্রেসিডেন্ট মাহবুবুল আলমের সভাপতিত্বে অনুষ্ঠানে চেম্বার সিনিয়র সহ-সভাপতি তরফদার মো. রুহুল আমিন, ইন্টারলিংক বিজনেস কনসালটেন্সি মাহবুব নূর, কনক্রিট ক্যানভাস গ্রুপের ড্যারেন হিউজস, আব্রাহাম ডিন এসোসিয়েট-এর ডিরেক্টর সাঈদ উদ্দিন, যুক্তরাজ্যের গ্লোবাল রিক্রুটমেন্ট কনসালট্যান্ট-এর সিইও নোমান রুহিদ, চেম্বারের সাবেক পরিচালক মাহফুজুল হক শাহ, বাংলাদেশ শিপিং এজেন্টস এসোসিয়েশনের পরিচালক শাহেদ সরোয়ার ও লিটল জুয়েল স্কুলের অধ্যক্ষ দিলরুবা আহমেদ বক্তব্য রাখেন। অন্যদের মধ্যে চেম্বার পরিচালক এ কে এম আক্তার হোসেন, জহিরুল ইসলাম চৌধুরী, শাহজাদা মো. ফৌজুল আলেফ খান, সাজির আহমেদ, মো. ইফতেখার ফয়সাল, এসএম তাহসিন জোনায়েদ, মোহাম্মদ আদনানুল ইসলাম ও মোহাম্মদ নাসিরুল আলম, এইচআরসি’র সিনিয়র পরিচালক কাজী রুকুনউদ্দীন আহমেদ, চেম্বার ওয়েলস’র প্রতিনিধিবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।

তথ্যসূত্র: বাসস


Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর