আজ ২রা জ্যৈষ্ঠ, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১৬ই মে, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

দোহাজারীতে পরিবার নিয়ে অর্ধাহার-অনাহারে দিন কাটাচ্ছেন গ্রামপুলিশ সদস্যরা,পৌরসভায় আত্মীকরণের দাবি

মোঃ কামরুল ইসলাম মোস্তফা, চন্দনাইশঃ
চন্দনাইশ উপজেলার দোহাজারী ইউনিয়নকে ২০১৭ সালে পৌরসভায় উন্নীত করা হয়। ওই বছরের ১১ মে গেজেট প্রকাশের পর পৌরসভার আনুষ্ঠানিক কার্যক্রম শুরু হয়।

পৌরসভায় উন্নীত হওয়ার পর দোহাজারী ইউনিয়নের গ্রাম পুলিশদের পদ-পদবী বিলুপ্ত হয়ে যাওয়ার ফলে ২০১৭ সাল থেকে তারা বেতন-ভাতা পাচ্ছেন না। পৌরসভায় লোকবল নিয়োগের সময় যোগ্যতা অনুসারে তাদেরকে পৌরসভায় আত্মীকরনের আশ্বাস দেয়া হলেও অদ্যাবধি তা বাস্তবায়ন না হওয়ায় তাদের মধ্যে হতাশা বিরাজ করছে।

চৌকিদার ও দফাদার পদবীধারী ব্যক্তিরা সেই ব্রিটিশ আমল থেকেই গ্রামীণ সমাজ জীবনে অতি পরিচিত। স্থানীয় সরকার ব্যবস্থায় তাদের গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা সম্পর্কে কমবেশি সবাই অবহিত। তৃণমূল পর্যায়ে আইন-শৃঙ্খলা রক্ষায় অপরিহার্য দায়িত্ব পালনের নিমিত্তেই তারা কাজ করেন তারা।

সাধারন মানুষের নিরাপত্তায় জীবনবাজী রেখে দায়িত্ব পালনকারী এসব গ্রাম পুলিশ নিজ পরিবারের সদস্যদের নিয়ে নিদারুন অর্থাভাবে মান‌বেতর জীবন যাপন করছেন। বিগত পাঁচ বছর ধরে তারা তাদের পরিবার-পরিজন নিয়ে অর্ধাহার-অনাহারে দিনাতিপাত করছেন।

বিলুপ্ত দোহাজারী ইউনিয়নের দফাদার উত্তম কান্তি সেন বলেন, “দোহাজারী ইউনিয়ন পৌরসভায় উন্নীত হওয়ার পর আমাদের পদ-পদবী বিলুপ্ত হয়ে যায়। এরপর থেকে বেতন-ভাতা না পেলেও চাকুরী পৌরসভায় আত্মীকরনের আশ্বাস পাচ্ছি। সেই আশ্বাসে আশ্বস্ত হয়ে বিগত পাঁচ বছর ধরে পরিবার পরিজন নিয়ে অর্ধাহারে-অনাহারে দিনাতিপাত করছি। পৌরসভায় লোকবল নিয়োগের সময় যোগ্যতা অনুসারে আমাদেরকে আত্মীকরণ করা হবে এমন আশ্বাসে ২০১৭ সাল থেকে অদ্যাবদি অপেক্ষায় আছি আমরা। পৌরসভায় আত্মীকরনের জন্য ইতিমধ্যে আমরা চন্দনাইশ উপজেলা নির্বাহী অফিসার ও চট্টগ্রাম জেলা প্রশাসক বরাবরে আবেদন করেছি। সবার কাছ থেকে শুধু সান্ত্বনা আর আশ্বাস পাচ্ছি।”

বিলুপ্ত দোহাজারী ইউনিয়নের ১০ জন গ্রাম পুলিশ ও তাদের পরিবারের কথা বিবেচনায় নিয়ে দ্রুত তাদেরকে পৌরসভায় আত্মীকরনের জন্য সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের কাছে জোড় দাবী জানিয়েছেন গ্রাম পুলিশের এসব সদস্যরা।

এব্যাপারে মুঠোফোনে যোগাযোগ করা হলে দোহাজারী পৌরসভার সচিব (অ.দা.) মোহাম্মদ মহসিন বলেন, “বিলুপ্ত ইউনিয়নের কাউকে পৌরসভায় আত্মীকরনের বিষয়ে আগের আইনে সুস্পষ্ট কোন নির্দেশনা ছিলো না। তবে সম্প্রতি জাতীয় সংসদে পৌরসভা আইন সংশোধন বিল পাস হয়েছে বলে জানতে পেরেছি।

সেই আইনে নতুন পৌরসভা গঠন হলে বা কোনো ইউনিয়নের অংশবিশেষ পৌরসভার অন্তর্ভুক্ত হলে বিলুপ্ত ইউনিয়ন বা বিলুপ্ত অংশে কর্মরতদের পৌরসভায় অন্তর্ভুক্তির সুযোগ রাখা হয়েছে বলে জানতে পেরেছি।
তিনি আরো বলেন, গ্রাম পুলিশদের দায়িত্ব যদি পৌরসভার অর্গানোগ্রামে উপযুক্ত হয়, তাহলে তারা সেখানে স্বয়ংক্রিয়ভাবে সংযুক্ত হয়ে যাবেন। এব্যাপারে প্রশাসক মহোদয়ের সাথে আলোচনা সাপেক্ষে প্রয়োজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।

Leave a Reply

Your email address will not be published. Required fields are marked *

     এই বিভাগের আরও খবর