আজ ১৬ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ১লা অক্টোবর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

চট্টগ্রাম মহানগরে ঈদ জামাতে কোনও হুমকি নেই: সিএমপি কমিশনার


ঈদুল আজহার জামাতকে কেন্দ্র করে চট্টগ্রাম মহানগরে কোন ধরনের হুমকি নেই বলে মন্তব্য করেছে চট্টগ্রাম মেট্রোপলিটন পুলিশ (সিএমপি) কমিশনার সালেহ মোহাম্মদ তানভীর। বৃহস্পতিবার (৭ জুলাই) দুপুরে সিএমপির মিডিয়া সেন্টারে পবিত্র ঈদুল আজহা উপলক্ষে আইনশৃঙ্খলা বিষয়ে সংবাদ সম্মেলনে এই মন্তব্য করেন তিনি।

সিএমপি কমিশনার বলেন, ঈদুল আজহা উপলক্ষে গরুর বাজার ও চামড়া ক্রয়-বিক্রয়কালে নগরে বিশেষ নিরাপত্তা ব্যবস্থা গ্রহণ করা হয়েছে। ঈদের আনন্দ সবাই উপভোগ করবে। বাসা খালি করে বা পুরো বিল্ডিং খালি করে কোথাও যেতে নিরুৎসাহিত করছি। বাড়ির সামনে পিছনে আলোকিত করে যাবেন।

বাড়িতে সিসি ক্যামেরা থাকলে অপরাধীরা ভয় পাবে। বাড়ির সামনের রাস্তার অংশে একটি সিসি ক্যামেরা বসানোর পরামর্শ দিয়ে তিনি বলেন, এতে পুলিশের জন্যও অপরাধী শনাক্ত করা সহজ হয়। তারপরও আমরা আইনশৃঙ্খলা রক্ষায় আন্তরিক আছি। পুলিশের নাইট পেট্রোল ও অতিরিক্ত টহলের ব্যবস্থা থাকবে। ঈদে দর্শনীয় স্থানগুলো খোলা থাকবে। প্রত্যেকের আনন্দ-উৎসবে অংশ নেওয়ার অধিকার আছে। তবে এটি যেন কখনোই সীমা ছাড়িয়ে না যায়। রাতে উচ্চশব্দে গান বাজনার বিষয়ে পুলিশের কাছে কেউ অভিযোগ করলে প্রয়োজনীয় আইনী ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

তিনি বলেন, সিএমপি কোরবানির পশুর হাটের নিয়মিত নিরাপত্তা দিচ্ছে। থানার নিয়মিত মোবাইল টহল, ট্রাফিক ব্যবস্থা, জাল নোট সনাক্তকরণ বুথ, সাদা পোশাকে পুলিশী টহল, টাকা পরিবহনে নিরাপত্তা দিচ্ছে। এছাড়া ডিবি’র মোবাইল টিম, বোম্ব ডিসপোজাল টিম, সুইপিং টিম, স্ট্রাইকিং রিজার্ভ, কুইক রেসপন্স টিম রয়েছে। বাস স্ট্যান্ড, রেলওয়ে স্টেশন, স্টিমারঘাট ও মার্কেট এলাকার নিরাপত্তা দিচ্ছে পুলিশ। গুরুত্বপূর্ণ স্থান ও আবাসিক এলাকাসমূহের জন্য ঈদের দিন হতে নিয়মিত নিরাপত্তা ব্যবস্থার পাশাপাশি বিশেষ মোবাইল টহল থাকবে।

পশুবাহী ট্রাক জোরপূর্বক যেন কোনও হাটে কেউ নিতে বাধ্য না করতে পারে সে বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে সিএমপি। পাশাপাশি অনুমোদিত হাট ব্যতীত অন্য কোনও স্থানে যাতে কেউ পশুর হাট না বসাতে পারে এবং কোথাও যেন কেউ অবৈধ খুঁটির ব্যবসা করতে না পারে সে বিষয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করেছে। পশুবাহী খালি ট্রাক ফেরত যাওয়ার সময় যাত্রী পরিবহন না করতে বলেছে সিএমপি।

সিএমপির অস্থায়ী সাব-কন্ট্রোল রুম রয়েছে: অলংকার বাস স্ট্যান্ড, নতুন রেলওয়ে স্টেশন, বহদ্দারহাট বাস টার্মিনাল, একে খান মোড় ও কর্ণফুলী ব্রীজ গোল চত্বর এলাকায়।

ঈদ জামাতের নিরাপত্তা ব্যবস্থা থাকবে জমিয়াতুল ফালাহ্ জামে মসজিদ, আন্দরকিল্লা শাহী জামে মসজিদ এবং বড় ঈদ জামাতে। এছাড়া অন্যান্য মসজিদে ঈদ জামাতের নিরাপত্তা থানা, ফাঁড়ি কর্তৃক প্রদান করা হবে। ঈদ জামায়াত কেন্দ্রিক পিকেট ডিউটি, থানার নিয়মিত মোবাইল টহল, সাদা পোষাকে পুলিশী ব্যবস্থা ও ডিবি টিম মোতায়েন থাকবে।

চামড়া হাটে নিরাপত্তায় নিয়মিত ডিউটি, থানা মোবাইল টিম, ডিবি টিম, সাদা পোষাকে পুলিশ ও র্যা বের টহল থাকবে। চামড়া পাচার রোধকল্পে সংগৃহিত গোয়েন্দা তথ্যের ভিত্তিতে যথাযথ ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে। কোনও এলাকায় যাতে সিন্ডিকেট তৈরি করে কোরবানির চামড়া ক্রয়-বিক্রয়ে প্রতিবন্ধকতা সৃষ্টি করতে না পারে, কেউ যাতে চাঁদাবাজি করতে না পারে সেদিকে সতর্ক দৃষ্টি রাখা হবে। ঢাকাগামী চামড়া বহনের ট্রাক চলাচলে কোনও বাধা-নিষেধ থাকবে না।

এ সময় অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ক্রাইম অ্যান্ড অপারেশন) মো. শামসুল আলম, অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (ট্রাফিক) শ্যামল কুমার নাথ ও অতিরিক্ত পুলিশ কমিশনার (প্রশাসন ও অর্থ) সানা শামিনুর রহমান উপস্থিত ছিলেন।

 


Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এই বিভাগের আরও খবর