আজ ১০ই আশ্বিন, ১৪২৯ বঙ্গাব্দ, ২৫শে সেপ্টেম্বর, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

উদ্যোক্তা সৃষ্টির লক্ষ্যে তারুণ্যের প্রতীক উদ্যােগে চট্টগ্রাম সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে কর্মশালা অনুষ্ঠিত


নিজস্ব প্রতিনিধি: দেশের ডিজিটাল প্রযুক্তির দিগন্তে সীমাহীন অগ্রগতির মাধ্যমে প্রযুক্তি প্রবণ পরিবেশ সৃষ্টির কারণে অর্থনীতি দ্রুত বৃদ্ধি পাচ্ছে। পরিবর্তনশীল বৈশ্বিক অর্থনৈতিক পরিস্থিতির সঙ্গে ও তথ্য-প্রযুক্তি নির্ভর বিশ্বের সাথে তাল মেলাতে এবং বেকার তরুণদের কর্মসংস্থান সৃষ্টিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখতে স্টার্টআপ চট্টগ্রামের সহযোগিতায় তারুণ্যের প্রতীকের উদ্যােগে চট্টগ্রাম সফটওয়্যার টেকনোলজি পার্কে নতুন উদ্যোক্তা সৃষ্টির লক্ষ্যে কর্মশালা অনুষ্ঠিত হয়।

প্রতিষ্ঠাতা সভাপতি জি.এম তাওসীফ সভাপতিত্বে প্রধান অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন আন্তর্জাতিক খ্যাতিসম্পন্ন কম্পিউটার বিজ্ঞানী ও চট্টগ্রাম বিশ্ববিদ্যালয় কম্পিউটার সায়েন্স বিভাগের সাবেক চেয়ারম্যান প্রফেসর ড. শাহাদাত হোসেন। বিশেষ অতিথি হিসেবে উপস্থিত ছিলেন সিলেট সানরাইজার্সের চেয়ারম্যান কুদরতি ইবতিহাস জয়, স্টার্টআপ চট্টগ্রামের প্রতিষ্ঠাতা আরাফাতুল ইসলাম আকিব।

এই সময় আরো উপস্থিত ছিলেন তরুণ লেখক মুসাদ্দিকুল ইসলাম, তারুণ্যের প্রতীকের সাধারণ সম্পাদক আহসান উল্লাহ্ খান, সহ-সভাপতি ফারদিন আলী খান, মাসুকা তাসনিন, চট্টগ্রাম শাখার সভাপতি হাসান উদ্দীন, জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শাখার সভাপতি আল হাসনাত দিপন, সদস্য নিলয় ভট্টচার্য্য, শহিদুল ইসলাম, রাফা চৌধুরী, আবু সাঈদ আলভী, খায়ের সাকিব, সাব্বির আলী, মোঃ আরিফ, মোঃ আরাফাত, মোঃ সাইফুল ইসলাম, হামিম আল আবির সহ প্রমুখ।

প্রধান অতিথি প্রফেসর ড. শাহাদাত হোসেন বলেন, আমরা জানি, শুধু বই পড়ে কেউ কখনো উদ্যোক্তা হতে পারে না। তাই বই পড়ার সঙ্গে সঙ্গে বাস্তব অভিজ্ঞতা অর্জনের লক্ষ্য থেকে নিয়মিত স্টার্টআপ মার্কেট ও স্টার্টআপ এক্সপো আয়োজন, শিল্পকারখানা পরিদর্শন, নিজস্ব ইনকিউবেশন সেন্টারের সহায়তায় সৃজনশীল ব্যবসার ধারণা উদ্ভাবনের মাধ্যমে শিক্ষার্থীদের বিশ্বমানের উদ্যোক্তা হিসেবে গড়ে তোলার প্রচেষ্টা নেওয়া জরুরি। তারুণ্যের প্রতীকের এ উদ্যোগ অন্টারপ্রেনার তৈরিতে গুরুত্বপূর্ণ ভূমিকা রাখবে বলে মনে করি।

তিনি আরও বলেন , দেশের অর্থনীতিকে গতিশীল করতে নতুন উদ্যোক্তা তৈরীর কোন বিকল্প নেই। একুশ শতকের চ্যালেঞ্জ মোকাবেলার শর্তই হলো প্রযুক্তিগত জ্ঞান। অর্থনৈতিক উন্নয়ন ও প্রযুক্তিগত জ্ঞানকে কাজে লাগাতে পারলেই ভবিষ্যৎ বাংলাদেশ হয়ে উঠবে,উন্নত ও স্ব-নির্ভর।


Leave a Reply

Your email address will not be published.

     এই বিভাগের আরও খবর